1. dailyamarkothabd@gmail.com : admin :
  2. hmhabibullah2000@gmail.com : Habib :
  3. sabbirmamun402@gmail.com : Sabbir :
এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ- কোন বোর্ডে জিপিএ-৫ কত? - দৈনিক আমার কথা
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন

এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ- কোন বোর্ডে জিপিএ-৫ কত?

Amar Kotha Desk
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১২ মে, ২০২৪

রোববার (১২ মে) প্রকাশিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, সব বোর্ড মিলিয়ে গড় পাসের হার ৮৩.০৪ শতাংশ।

ফলাফলে দেখা গেছে, সবচেয়ে বেশি পাসের হার যশোর বোর্ডে। আর সবচেয়ে কম পাসের হার সিলেট বোর্ডে। তবে সবচেয়ে বেশি জিপিএ-৫ রয়েছে ঢাকা বোর্ডে। এ বোর্ডে পাসের হার ৮৩.৯২ শতাংশ। তবে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৯ হাজার ১৯০ জন শিক্ষার্থী।রাজশাহীতে পাস ও জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে। এবার পাস করেছে ৮৯.২৬ শতাংশ শিক্ষার্থী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৮ হাজার ৭৪ শিক্ষার্থী। গত বছর পাসের হার ছিল ৮৭.৮৯ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২৬ হাজার ৮৭৭ জন।

যশোরে পাসের হার ৯২.৩৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০ হাজার ৭৬১ জন শিক্ষার্থী। দিনাজপুরে পাসের হার ৭৮.৪৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ হাজার ১০৫ জন শিক্ষার্থী।ময়মনসিংহে পাসের হার ৮৪.৯৭ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৩ হাজার ১৭৬ জন। কুমিল্লায় পাস করেছে ৭৯.২৩ শতাংশ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে জিপিএ- ৫ পেয়েছে ১২ হাজার ১০০ শিক্ষার্থী। গত বছরের চেয়ে এবারের ফলাফলে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। গতবার পাসের হার ছিল ৭৮.৪২ শতাংশ। জিপিএ- ৫ পেয়েছিল ১১ হাজার ৬২৩ জন।

চট্টগ্রামে পাসের হার ৮২.৮০ শতাংশ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০ হাজার ৮২৩ শিক্ষার্থী। গত বছর এই বোর্ডে পাসের হার ছিল ৭৮.২৯ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১১ হাজার ৪৫০ জন শিক্ষার্থী।

সিলেটে পাসের হার ৭৩.৩৫ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ৯২০ জন। গত বছরের তুলনায় এবার এ বোর্ডে পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে। গত বছর পাসের হার ছিল ৮৯.০৫ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৮ হাজার ৫০৫ জন। বরিশালে পাসের হার ৮৯.১৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ১৪৫ জন।

এছাড়া মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৭৯.৬৬ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪ হাজার ২০৬ জন। আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) ৮১.৩৮ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৭৮ জন।
এবার এসএসসি, দাখিল, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ২৪ হাজার ১৯২ জন। গতবারের চেয়ে এবার পরীক্ষার্থী কমেছে প্রায় ৪৮ হাজার।

৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীন এসএসসির তত্ত্বীয় পরীক্ষা ১৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ১২ মার্চ শেষ হয়। ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয় ২০ মার্চ। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীন দাখিলের তত্ত্বীয় পরীক্ষা ১৪ মার্চ এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা ২১ মার্চ শেষ হয়। আর কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীন এসএসসি ও ভোকেশনালের তত্ত্বীয় পরীক্ষা ১২ এবং ব্যবহারিক পরীক্ষা ২১ মার্চ শেষ হয়।সারা দেশে ২৯ হাজার ৭৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ৩ হাজার ৭০০টি কেন্দ্রে পরীক্ষা দেয়। আর বিদেশের আট কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

 

Facebook Comments Box

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর