1. dailyamarkothabd@gmail.com : admin :
  2. hmhabibullah2000@gmail.com : Habib :
  3. sabbirmamun402@gmail.com : Sabbir :
৯ মাসের শিশু চুরি, উদ্ধার হয়নি ৩ দিনেও - দৈনিক আমার কথা
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন

৯ মাসের শিশু চুরি, উদ্ধার হয়নি ৩ দিনেও

সদর (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

 

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে একটি কিন্ডারগার্ডেন থেকে চুরি হওয়া ৯ মাস বয়সী শিশু মালিহা ইসলাম ওহি ৩ দিনেও উদ্ধার হয়নি।

৯ মাসের শিশু চুরি, উদ্ধার হয়নি ৩ দিনেও। ছবিঃ আমার কথা

ওহি সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের চড়ুইভাতি গ্রামের আবুধাবি প্রবাসী মো. সেলিমের মেয়ে। তার মা মরিয়ম বেগম ঐ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক।

এদিকে মেয়ের শোকে মা মরিয়মের কান্না থামানোর উপায় খুঁজে পাচ্ছে না কেউই। বারবার কান্নায় ভেঙে পড়ছেন তিনি।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে শিশু ওহিকে উদ্ধারের দাবিতে ঘটনাস্থল তোরাবগঞ্জ অগ্রণী রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এতে ওহির মা মরিয়মসহ আত্মীয়স্বজন, বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এতে অংশ নেয়।এসময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে দুই হাত তুলে বিলাপ করতে থাকেন শিশু ওহির মা মরিয়ম বেগম।

তিনি বলেন, ‘ফিরিয়ে দে আমার বুকের মানিককে। পাষাণীরে, কীভাবে নিয়ে গেলি আমার অবুঝ শিশুরে। যেদিকে তাকাই, সেদিকেই আমি তাকে চোখে দেখি। ফিরিয়ে দে আমার অবুঝ শিশুকে।’

এদিকে ঘটনার সঙ্গে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ করছেন শিশুর মা সহ স্বজনরা।

তবে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শফিক উল্যাহ বলেন, শিশুটিকে তার মা একজন আত্মীয়ের কাছে রেখে যায়। বিষয়টি বিদ্যালয়ের কেউ জানত না। শিশুটি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনাটি শোনা মাত্রই আমরা পুলিশকে জানাই। পুলিশ এসে সিসি ক্যামেরা ফুটেজ যাচাই করে শিশুটিকে উদ্ধারে কাজ করছে। আমরাও বিভিন্নভাবে চেষ্টা করছি। আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সত্য নয়।

পুলিশ ও ওহির মা মরিয়ম বেগম জানান, চুরি হওয়া ওহির বড় বোন সাবিহা ইসলাম মিহি (৬) অগ্রণী রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের নার্সারি শ্রেণির ছাত্রী। গত বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে মিহি যেমন খুশি তেমন সাজো অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। এতে ওহিকে নিয়ে তার মা মরিয়মও বিদ্যালয়ে যায়। মিহিকে সাজানোর জন্য চুলের ক্লিপ ও বেল্ট আনার জন্য বিদ্যালয়ের পাশেই বাজারে যান মরিয়ম।

এসময় জোর করে মায়া নামের ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী ওহিকে তার কাছে রেখে দেয়। মায়া সম্পর্কে মরিয়মের ফুফাতো বোন হয়। এরমধ্যেই মায়ার কোল থেকে অচেনা এক নারী ওহিকে নিয়ে যায়।

বাজার থেকে ফিরে ওহির কথা জিজ্ঞেস করলে মায়া জানায়- সে অন্য একজনের কোলে রয়েছে।

কিছুক্ষণ পরে ওহিকে আবারও আনতে বললে জানায়, অন্য এক নারী ওহিকে কোলে নিয়েছে। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে বিদ্যালয়ের ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা যাচাই করে দেখেন মাথায় লাল হিজাব, মুখে মাস্ক ও কালো বোরকা পরিহিত এক নারী শিশুটিকে কোলে নিয়ে বের হয়ে যাচ্ছে। বাজারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সিসি ক্যামেরা যাচাই করেও একই দৃশ্য দেখা গেছে।

কমলনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল জলিল বলেন, শিশু ওহিকে উদ্ধারে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতা প্রয়োজন। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি তাকে উদ্ধার করতে।

Facebook Comments Box

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর